বাংলাদেশের চলচ্চিত্রকে কানাডার মূলধারায় পরিচিত করার লক্ষ্য নিয়ে গঠিত টরন্টো ফিল্ম ফোরাম পাঁচ বছর অতিক্রম করে ছয় বছরে পা দিয়েছে। 

ফোরামের পঞ্চম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষ্যে গত শনিবার সন্ধ্যায় ডেনফোর্থের মিজান কমপ্লেক্সে চলচ্চিত্র প্রদর্শণী  ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কবি আসাদ চৌধুরী। শুরুতেই ‘বিশ্বাসের রঙ’ এবং ‘দ্যা লাষ্ট পোষ্ট অফিস’ চলচ্চিত্র দু’টি প্রদর্শিত হয়। পরে গত টরন্টো ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে দায়িত্ব পালনকারী ছেলেমেয়েদের হাতে সার্টিফিকেট তুলে দেওয়া হয়। সোলায়মান তালুত রবিনের সঞ্চালনায় কবি আসাদ চৌধুরী নতুন প্রজন্মের ছেলেমেয়েদের হাতে সার্টিফিকেট তুলে দেন। এই সময় রেজিনা খান এবং মুক্তিপ্রসাদ মঞ্চে  উপস্থিত ছিলেন। 

মনিস রফিকের সঞ্চালনায় আলোচনা পর্বে ফিল্ম ফোরামের সভাপতি এনায়েত করীম বাবুল, আহমেদ হোসেন, দেলোয়ার এলাহী, চিত্র নির্মাতা সাইফুল ওয়াদুদ হেলাল,কবি ইকবাল হাসান, জগলুল আজিম প্রমুখ অংশ নেন।

কবি আসাদ চৌধুরী তার বক্তৃতায় টরন্টো ফিল্ম ফোরামের কার্যক্রমের ভুয়সী প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, টরন্টো ফিল্ম ফোরাম কানাডায় বাংলা চলচ্চিত্রকে পরিচিত করে তোলার যে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে তা অভূতপূর্ব। 

নতুন প্রজন্মকে ফিল্ম ফোরামের কর্মকাণ্ডের সঙ্গে আরও বেশি সম্পৃক্ত করার আহ্বান জানিয়ে কবি আসাদ চৌধুরী বলেন, আমি বিশ্বাস করি, নতুন প্রজন্মের এই ছেলেমেয়েদের মধ্য থেকেই ভবিষ্যতে নতুন চিত্র নির্মাতা বেরিয়ে আসবে।