গত ৩১’শে অক্টবর শুক্রবার, লসএঞ্জেলেসের বাংলাদেশ একাডেমিতে লস এঞ্জেলেস্থ বাংলাদেশ কন্সাল জেনারেল বাবু প্রিয়তোষ সাহাকে প্রবাসী বাংলাদেশীদের পক্ষ থেকে এক বিদায়ী সংবর্ধনা দেওয়া হয়। বাবু প্রিয়তোষ সাহা লস এঞ্জেলেসে তিন বৎসর অধিককাল বাংলাদেশের প্রতিনিধি হিসাবে মেয়াদ পালন করেন। এই তিন বৎসরে তিনি কন্সাল অফিসের সেবা মানের গুনগত পরিবর্তন সহ বাংলাদেশ সরকারের দেওয়া দায়িত্ব দক্ষতার সাথে পালন করেছেন। প্রিয়তোষ সাহার মেয়াদকালেই লস এঞ্জেলেসে বাংলাদেশ কন্সুলেটের জন্য স্থায়ী ভবন ক্রয় করা হয়।

লিটল বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সভাপতি কাজী মশরুল হুদার সভাপতিত্বে ও প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক লস্কর আল মামুনের পরিচালনায় সংবর্ধনায় উপস্থিত ছিলেন প্রবাসী বাংলাদেশী বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ। উপস্থিত প্রবাসীদের পক্ষে সংবর্ধনা সভায় বক্তব্য দেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মুস্তাইন দারা বিল্লাহ, বাংলাদেশ একাডেমির পরিচালক জাহিদ হোসেন পিন্টু, ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট আওয়ামী লীগের সভাপতি শফিকুর রহমান, বেঙ্গলি হিন্দু সোসাইটির নেতা বাবু ঘন শ্যাম, বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা ও ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ফিরোজ আলম, ডেমোক্র্যাটিক পার্টির বাংলাদেশী সভাপতি মোহাম্মদ শামীম, বালার সভাপতি সৈয়দ এম হোসেন বাবু, বায়োস্কোপ সিনেমার সত্ত্বাধিকারী ডাঃ রাজ হামিদ, বাংলাদেশী ব্যবসায়ী প্রতিনিধি আলাউদ্দিন খোকন, ইউম্যান লিডার কমিশনার ড্যানি তৈয়ব ও কানিজ ফাতিমা।

বিদায়ী সংবর্ধিত কন্সাল জেনারেল তার লস এঞ্জেলেসের দায়িত্ব পালনকালীন তার সাফল্য ব্যর্থতা ও অভিযোগ নিয়ে একটি জবাবদিহিতা মূলক বক্তব্য প্রদান করেন। উপস্থিত সকলে তার আবেগঘন বক্তব্যে আপ্লুত হয়ে পড়েন।

উল্লেখ্য, কন্সাল জেনারেলের বিরুদ্ধে লস এঞ্জেলেসের কতিপয় ব্যক্তি কমিউনিটিতে অনৈক্য সৃষ্টি ও কনসুলেট অফিসের ভবন ক্রয়ে দুর্নীতির অভিযোগ করে আসছে। উক্ত মহলটি কন্সাল জেনারেলের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানটি ভণ্ডুল করার উদ্দেশ্যে একই স্থানে প্রতিবাদ সমাবেশের ডাক দেয়। তবে সব কিছু উপেক্ষা করে বিদায়ী সংবর্ধনায় উল্লেখযোগ্য সংখ্যক প্রবাসী উপস্থিত হন। অনুষ্ঠানে বিদায়ী কন্সাল জেনারেলকে মানপত্র সহ বিভিন্ন সংগঠন থেকে ক্রেস্ট প্রদান করে।