বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি না হওয়া পর্যন্ত মার্কিন কংগ্রেসসহ আন্তর্জাতিক অঙ্গনে লাগাতার দেন-দরবারের অঙ্গীকার ও প্রত্যয় ব্যক্ত করল যুক্তরাষ্ট্রস্থ ‘তারেক পরিষদ আন্তর্জাতিক কমিটি’।

২৫ অক্টোবর (শুক্রবার) রাতে নিউইয়র্ক সিটির জ্যামাইকায় এই সংগঠনের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে‘তারেক পরিষদ আন্তর্জাতিক কমিটি’র প্রতিষ্ঠাতা-চেয়ারপারসন এবং ডেমক্র্যাটিক পার্টির তৃণমূলের সংগঠক আকতার হোসেন বাদল বলেছেন, ‘বাংলাদেশের গণতন্ত্র আজ বিপন্ন। মানুষের কথা বলার স্বাধীনতা হরণ করা হয়েছে। মিডিয়াকে বাধ্য করা হচ্ছে চাটুকারিতায়। সামাজিক সম্প্রীতি ধ্বংসের চেষ্টা চালাচ্ছে ক্ষমতাকে দীর্ঘতর করার অভিপ্রায়ে।’  ‘দুর্নীতিবিরোধী অভিযানের নামে সরকার জনগণের দৃষ্টি সরিয়ে নেওয়ার আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছে। কারণ, ক্ষমতাসীন দলের লোকজন এতটাই দুর্নীতিতে লিপ্ত যে, দুয়েকজনকে বহিষ্কার আর গ্রেফতারের মধ্য দিয়ে তা কখনোই নির্মূল করা সম্ভব হবে না। এজন্য দরকার এই সরকারকে বিদায় করা,’ মন্তব্য এই তরুণ রাজনীতিকের।

সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক মোয়াজ্জেম হোসেনের সভাপতিত্বে এবং সদস্য-সচিব ওয়াজেদ আহমেদের সঞ্চালনায় এ সময় নেতৃবৃন্দের মধ্যে আরও ছিলেন আনোয়ার হোসেন, মজিবর রহমান স্বপন, সোহেল সরকার, আহম্মদ আলী, ফাইজুল তুষার প্রমুখ। 

বক্তারা উল্লেখ করেন, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির কমিটি না থাকায় হতাশাগ্রস্ত নেতাকর্মীরা পরস্পরের বিরুদ্ধে নানা বিষোদগারে লিপ্ত। এ অবস্থায় তারেক পরিষদকে সুসংগঠিত করে প্রবাসে শহীদ জিয়ার আদর্শে উজ্জীবিতদের খালেদা জিয়ার মুক্তি আন্দোলনে সাহস জোগানো হবে। খালেদা জিয়ার মুক্তি ব্যতীত বাংলাদেশে গণতন্ত্র ফিরবে না বলেও মন্তব্য করেন বক্তারা। এ সময় জানানো হয় যে, বিএনপির ঘোষণা অনুযায়ী ‘৭ নভেম্বর জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস’ উপলক্ষে ৯ নভেম্বর নিউইয়র্কে একটি সমাবেশ করা হবে।