গত ২৬, ২৭, ২৮ ও ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ চারদিনব্যাপী এ দেশের (আমেরিকার) সর্ববৃহত্তর জাতিগত উৎসব ৪৬তম লস এঞ্জেলেস কোরিয়ান ফেস্টিবল অনুষ্ঠিত হয় কোরিয়া টাউনের সিউল ইন্টারন্যাশন্যাল পার্কে। প্রতিবছরের ন্যায় ফেস্টিবলে ছিল প্যারেড, মেলা, উৎসব ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানমালা। উক্ত ফেস্টিবলে প্রায় তিনশত হাজারের অধিক মানুষের সমাগম হয়। কোরিয়ান কালচার, ইতিহাস, আর্ট ও কৃষ্টিকে তুলে ধরার প্রত্যয়ে এই ফেস্টিবলের ঐতিহ্য। সেই সাথে বহু সংস্কৃতির ধারণাকে উন্নিত করার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে এই ফেস্টিবল। এবারই প্রথম বাংলাদেশ কমিউনিটি অংশগ্রহণ করেছে উক্ত কোরিয়ান ফেস্টিবলে। উদ্দেশ্য ছিল দুই দেশের কমিউনিটির মধ্যে সৌহার্দ্য ও বন্ধুত্বমূলক সম্পর্ক নির্মাণ এবং সাংস্কৃতিক বিনিময়। রামপাট ভিলেজ নেবারহুড কাউন্সিলের কমিউনিটি ইন্টারেস্ট রিপ্রেজেন্টেটিভ কাজী মশহুরুল হুদা’র প্রচেষ্ঠায় দুই কমিউনিটির সাথে এই প্রথম একত্রে প্রত্যক্ষভাবে অংশগ্রহন করেছে। গত ২৬শে সেপ্টেম্বর বিকেল ৫টায় ফেস্টিবলের উদ্বাধনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ কমিউনিটির পক্ষে আমন্ত্রিত হয়ে বক্তব্য দেন লিটল বাংলাদেশ প্রেসক্লাব অব লস এন্জেলেস এর সভাপতি কাজী মশহুরুল হুদা। বাংলাদেশ কমিউনিটি ২৭শে সেপ্টেম্বর বিকেল সাড়ে ৫টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহন করে। নৃত্য পরিবেশন করে ইপ্সিতা, সংগীতে সোনিয়া খুকু এবং মাইম আইকন কাজী মশহুরুল হুদার মূকাভিনয়। ক্যালিফোর্নিয়া বংগবন্ধু পরিষদ ৪দিন ব্যাপী সাংস্কৃতিক স্টল ও ২৮শে সেপ্টেম্বর বিকেল ৩টায় অনুষ্ঠিতব্য প্যারেডে বাংলাদেশ কমিউনিটির পক্ষে অংশগ্রহণ করছে। পরিচালনায় ছিল রানা মাহমুদ এবং সহযোগিতায় কামরুল সিপন, মিজানুর রহমান, মনোয়ার ভাইয়া, স্বরজ প্রমুখ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের বক্তব্যে হুদা কোরিয়ান কমিউনিটিকেও বাংলাদেশ ডে প্যারেডে অংশগ্রহণের জন্য আমন্ত্রণ জানান। কোরিয়ান কমিউনিটিতে অংশগ্রহনের মধ্যদিয়ে বাংলাদেশ কমিউনিটির অন্যান্য দেশের জাতিগত মিলনের পদক্ষেপের সূচনা। আগামীতে কমিউনিটির সকলের সহযোগিতা ও অংশগ্রহণে এগিয়ে যাবে লিটল বাংলাদেশ কমিউনিটির উদ্দেশ্য ও আদর্শ, এমনটিই ধারণা করছেন কমিউনিটির মানুষ।