ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যকে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিয়েছেন সাংগঠনিক অভিভাবক ও আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময় ছাত্রলীগের ইমেজ (ভাবমূর্তি) বাড়বে এমনভাবে কাজ করতে সংগঠনের নতুন দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

নতুন দায়িত্ব পাওয়ার পর ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের নেতৃত্বে সংগঠনটির কয়েকজন শীর্ষনেতা শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গণভবনে গেলে তিনি একথা বলেন।

বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় প্রতিনিধিদলটি প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন গণভবনে গিয়ে তার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করে। এসময় প্রধানমন্ত্রী তাদেরকে নানা দিক নির্দেশনা দেন।

ছাত্রলীগ নেতাদের সর্তক করে শেখ হাসিনা বলেন, কোনো নালিশ শুনতে চাই না। ছাত্রলীগের পর যুবলীগ ধরেছি। নিজেদের ইমেজ বাড়াতে হবে।

ছাত্রলীগের প্রতিনিধিদলে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি তানজিল ভূইয়া তানভীর, রেজাউল করিম সুমন, সোহান খান, আরিফিন সিদ্দিক সুজন, আতিকুর রহমান খান, ইশাত কাসফিয়া ইরা; যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ চৌধুরী, আরিফুজ্জামান আল ইমরান, শামস-ই-নোমান, মো. শাকিল ভূইয়া, মহিউদ্দিন আহম্মেদ, বেনজীর হোসেন নিশি; সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন বিন সাত্তার, সাবরিনা ইতি ও সাজ্জাদ হোসেন ছিলেন।

এছাড়াও ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস ও সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন; ঢাকা মহানগর উত্তর শাখার সভাপতি মো. ইব্রাহিম হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক মো. সাইদুর রহমান হৃদয়; ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শাখার সভাপতি মো. মেহেদী হাসান ও সাধারণ সম্পাদক মো. জুবায়ের আহমেদ।

ছাত্রলীগ নেতাদের সঙ্গে গণভবনে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির সাংগঠনিক বিষয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আবদুর রহমান এবং সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম ও বি এম মোজাম্মেল হকও।

এ বিষয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান বলেন, ছাত্রলীগ একটি ঐতিহ্যবাহী সংগঠন। এ সংগঠনের ভাবমূর্তি যাতে ঠিক থাকে সেজন্য তাদের কাজ করতে দিকনির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এর আগে গত ১৪ সেপ্টেম্বর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন এবং সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীকে পদত্যাগ করেন। পরে বর্তমান কমিটির এক নম্বর ভাইস প্রেসিডেন্ট আল নাহিয়ান খান জয় ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও রব্বানীর স্থলে এক নম্বর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব দেয় হয়।

১৬ সেপ্টেম্বর ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদনের মধ্য দিয়ে দায়িত্ব পালন শুরু করেন ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। তিন দিনের মাথায় তারা গণভবনে সাংগঠনিক অভিভাবক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাক্ষাৎ পেলেন।

এর আগে বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) আওয়ামী লীগের সভাপতির ধানমন্ডিস্থ রাজনৈতিক কার্যালয়ে আওয়ামী লীগের চার নেতার সঙ্গে বৈঠক করেন ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় এবং ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টচার্য।