কাতারে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আসুদ আহমেদ বলেছেন, কাতারে বাংলাদেশ কমিউনিটি চরম ক্রান্তিকাল অতিবাহিত করছে। কাতারে কতিপয় বাংলাদেশি মাদক জুয়া, চুরি ছিনতাই থেকে শুরু করে হত্যার মতো কর্মকাণ্ডেও জড়িয়ে পড়ছে।তাদের কারণে চলমান কাতারে বাংলাদেশিদের উপর ব্যাপক ধরপাকড়ের ঘটনায় হয়রানির শিকার হচ্ছে সাধারণ প্রবাসীরা। তথাকথিত ফ্রি ভিসায় বিদেশ আসার পূর্বে কাজের চুক্তিপত্র ঠিক করে না আসার কারণে এসব অপরাধের প্রবণতা বেশি হচ্ছে। তাই তিনি চুক্তিপত্র ঠিক করে প্রবাসে আসার আহ্বান জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতাকর্মীদের নিজ নিজ অবস্থান থেকে এগিয়ে আসলে এসব অপরাধ প্রবণতা কমে আসবে বলে জানান রাষ্ট্রদূত। কাতারে জালালাবাদ এসোসিয়েশনের সভাপতি মোহাম্মদ আব্দুস সাত্তার দীর্ঘ তিন যুগ প্রবাস জীবন কাটিয়ে স্বদেশ গমন উপলক্ষে বিদায় সংবর্ধনা দিয়েছে সংগঠনটি। সংগঠনের সভাপতি মো. কফিল উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাষ্ট্রদূত এসব কথা বলেন। বৃহস্পতিবার কাতারের রাজধানী দোহার গ্র্যান্ড কাতার প্যালেস হোটেলে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আহমেদ মালেক এর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন উপদেষ্টা বোরহান উদ্দিন শরীফ, নজরুল ইসলাম সিসি, সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান বাবু, আনোয়ার হোসেন আকন, বীরমুক্তিযোদ্ধা ওমর ফারুক চৌধুরী, এস এম ফরিদুল হক, মোহাম্মদ ইসমাইল মিয়া, মোখলেছুর রহমান, আবু তাহের, বদরুল ইসলাম,ফয়েজ আহমেদ, আহমেদ সুয়েব প্রমুখ।

রাষ্ট্রদূত আরও বলেন, আব্দুস সাত্তার সাহেব দীর্ঘ কর্মময় জীবনে যে কাজ করে গেছেন তা কমিউনিটির মাঝে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে।

আরও উপস্থিত ছিলেন শিব্বির আহমেদ, রুহেল কবির, আবিদুর রহমান ফারুক, এনামুজ্জান এনাম, আব্দুল ওদুদ, জসিম উদ্দিন দুলাল, প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামুন, আবু রায়হান, মীর মোশারফ হোসেন, মাহবুব আলম, শফিকুল ইসলাম তালুকদার বাবু, শাহজাহান মিয়া, পংকি মিয়া, বাংলাদেশ দূতাবাসের বিভিন্ন কর্মকর্তাসহ বাংলাদেশ কমিউনিটির বিভিন্ন সামাজিক রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।