কানাডার টরেন্টোতে বাংলাদেশ ও কানাডার সাসকাচুয়ান প্রদেশের মধ্যে দ্বি-পাক্ষিক বাণিজ্য ও বিনিয়োগ বিষয়ক সেমিনার গত ৪ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাংলাদেশ হাই কমিশন, অটোয়া কর্তৃক আয়োজিত এ সেমিনার অভিজাত ফেয়ারমন্ট রয়েল ইয়র্ক হোটেলে অনুষ্ঠিত হয়। বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুন্সী বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন। অন্যদিকে কানাডীয় প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন বাণিজ্য ও রপ্তানী উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের আইন বিষয়ক সচিব এভারেট হিন্ডলি।

সেমিনারে বাংলাদেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ও উন্নয়নের চিত্র, বিনিয়োগ ইত্যাদির উপর একটি প্রামাণ্য ভিডিও চিত্র পরিবেশিত হয়। এরপরই কানাডায় নিযুক্ত বাংলাদেশের মান্যবর হাই কমিশনার মিজানুর রহমান বাংলাদেশের ধারাবাহিক অর্থনৈতিক উন্নয়নের চিত্র সভায় উপস্থিত সকলের নিকট তুলে ধরেন। বাংলাদেশ  ও সাসকাচুয়ান প্রদেশের মধ্যে দ্বি-পাক্ষিক বাণিজ্য সম্পর্কিত তথ্য উপস্থাপন করেন যথাক্রমে হাই কমিশনের কাউন্সেলর (বাণিজ্যিক) মো. শাকিল মাহমুদ এবং সাসকাচুয়ান প্রদেশের বাণিজ্য ও রপ্তানী উন্নয়ন মন্ত্রণালয়ের সহকারী উপ-মন্ত্রী মিজ জডি ব্যাঙ্কস।  বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুন্সী এমপি বলেন, বাংলাদেশ ও কানাডার মধ্যে একটি চমৎকার দ্বি-পক্ষীয় সম্পর্ক বিদ্যমান রয়েছে। বিশেষ করে কানাডার সাসকাচুয়ান প্রদেশ দু’দেশের বাণিজ্য বৃদ্ধিতে অসমান্য অবদান রেখে চলেছে। বর্তমানে বাংলাদেশে বিনিয়োগের অনুকূল পরিবেশ বিরাজ করছে। বাংলাদেশের বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চলে সাসকাচুয়ান প্রদেশের বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগের জন্য তিনি আহ্বান জানান।  বর্তমান বিনিয়োগ বান্ধব সরকার বৈদেশিক বিনিয়োগ আকর্ষণে বিনিয়োগকারীদের জন্য যে সকল প্রণোদনা ও সুযোগ-সুবিধা প্রদান করছে সে বিষয়েও তিনি আলোকপাত করেন ।

আলোচকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর প্রদান করেন যথাক্রমে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান জনাব মো: মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব তপন কান্তি ঘোষ, বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক মোহাম্মদ খুরশীদ ওয়াহাব, বাংলাদেশ ফার্মাসিউটিক্যাল এ্যাসোসিয়েনের সাধারণ সম্পাদক এস এম সফিউজ্জামান, বাংলাদেশ সফটওয়্যার এক্সপোর্টার এসোসিয়েশন (বেসিস) এর সভাপতি সৈয়দ সাদাত আলমাস কবির এবং কেনচেম বাংলাদেশের সভাপতি জনাব মাসুদুর রহমান প্রমুখ। মো. শাকিল মাহমুদ, কাউন্সেলর (বাণিজ্যিক) এর সঞ্চালনায় সম্পূর্ণ আলোচনা অনুষ্ঠানটি ছিল প্রাণবন্ত ও আন্তরিকতায় পরিপূর্ণ।