যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে জঙ্গি সন্দেহে দেলোয়ার মোহাম্মদ হোসাইন (৩৩) নামে এক বাংলাদেশিকে আটক করেছে দেশটির কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা (এফবিআই)। স্থানীয় সময় শুক্রবার সকালে নিউইয়র্কের জন এফ কেনেডি বিমানবন্দর থেকে তাকে আটক করা হয়।

ফেডারেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, মোহাম্মদ হোসাইন মার্কিন সেনাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য তালেবানের সঙ্গে যোগ দিতে যুক্তরাষ্ট্র ছেড়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন। 

হাফিংটন পোস্ট জানিয়েছে, থাইল্যান্ডগামী একটি ফ্লাইটে করে আফগানিস্তানে পৌঁছানোর লক্ষ্য ছিল তার। আটক করার পর ওই ব্যক্তিকে ম্যানহাটনের আদালতে তোলা হয়। এ সময় আদালত ওই বাংলাদেশিকে জামিন না দিয়ে আটক রাখার নির্দেশ দেন।

এফবিআই কাউন্টার টেররিজম বিভাগের পরিচালক মাইকেল ম্যাক গিরিটি জানান, দেলোয়ার হোসাইনের উদ্দেশ্য ছিল আফগানিস্তানে গিয়ে তালেবানদের সঙ্গে যোগ দেওয়া। এবং সেখানে থাকা আমেরিকান সৈন্যদের হত্যা করা। কিন্তু তার সে পরিকল্পনা ব্যর্থ হয়েছে। কারণ তার আগেই এফবিআইয়ের সদস্যরা তাকে আটক করেছে।

দেলোয়ার মোহাম্মদ হোসাইন নিউইয়র্কের ব্রঙ্কস এলাকার বাসিন্দা। তিনি বাংলাদেশের নাগরিক। পরে যুক্তরাষ্ট্রে যান। তার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদের অভিযোগ আনা হয়েছে।

এর আগে ২০১৭ সালের ১১ ডিসেম্বর নিউইয়র্কের পোর্ট অথরিটি বাস টার্মিনালের ভূগর্ভস্থ পথে বিস্ফোরণ ঘটানোর অভিযোগে আকায়েদ উল্লাহ নামে এক বাংলাদেশিকে আটক করা হয়েছিল। তিনি নিজের শরীরে ‘পাইপ বোমা’ বেঁধে বিস্ফোরণের চেষ্টা করেছিলেন কিন্তু তা ঠিকমত বিস্ফোরিত হয়নি। এতে প্রাণে বেঁচে যান তিনি। তবে গুরুতর আহত হন। পরে আহত অবস্থায় পুলিশ তাকে আটক করে। এ বিস্ফোরণে আহত হয়েছিলেন আরো তিন পুলিশ সদস্য।

পরে নিউইয়র্ক পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেন ইসলামিক স্টেটের (আইএস) মাধ্যমে অনুপ্রাণিত হয়ে এ হামলা চালানোর চেষ্টা করেছিলেন তিনি।