দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে ইন ও উত্তরের শীর্ষ নেতা কিম জং উনের মধ্যে হওয়া দুই দফা বৈঠকে ছয় দশকেরও বেশি সময় আগে কোরীয় যুদ্ধে বিচ্ছিন্ন হওয়া পরিবারগুলোর সদস্যদের পুনর্মিলনীর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আগামী আগস্টে তারা মিলিত হবেন বলে বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

উত্তর কোরিয়ার পর্যটন কেন্দ্র মাউন্ট কুমগাংগে শুক্রবার স্থানীয় সময় দুপুর ১টায় এ আলোচনা শুরু হয়।
এর আগে ২০১৫ সালে সর্বশেষ দুই কোরিয়ার বিচ্ছিন্ন কিছু পরিবারের সদস্যদের একে অপরের সঙ্গে দেখা হয়েছিল। পিয়ংইয়ংয়ের একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ ও পারমাণবিক পরীক্ষার সূত্র ধরে দুই দেশের সম্পর্ক তলানিতে পৌঁছালে পুনর্মিলনীর আয়োজনগুলো বন্ধ হয়ে যায়।

দুই কোরিয়ার বৈঠক শেষে এক যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়, আগামী ২০ থেকে ২৬ আগস্ট দুই দেশের ১০০ জন করে প্রতিনিধি এ মিলনমেলায় অংশগ্রহণ করবে। ইতিমধ্যে দক্ষিণ কোরিয়ার রেডক্রসের কাছে ৫৭ হাজার বিচ্ছিন্ন পরিবারের সদস্য নিবন্ধন করেছে।

Previous post ‘ভেনেজুয়েলায় বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডে নিরাপত্তা বাহিনী’
Next post যুক্তরাষ্ট্রে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সভাপতি ড. মনসুর, সম্পাদক কাদের
Close