শুক্রবার কানাডায় ছিল জি-৭ সম্মেলনের প্রথম দিন। এদিন দেরি করে এসে আগেই সম্মেলন স্থল ত্যাগ করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। প্রথম দিনই ট্রাম্প হুমকি দিয়েছেন বিশ্ব নেতাদের। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাকি ছয় সদস্য রাষ্ট্রের তীব্র বিরোধিতার মধ্য দিয়ে শেষ হয় ‘জি-সেভেন’ সম্মেলনের প্রথম দিন। সম্মেলনে চুক্তি করতে ব্যর্থ হলে আমেরিকা আরও ভালো পদক্ষেপ নেবে বলে ঘোষণা করেন ট্রাম্প। অন্যদিকে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের কঠোর সমালোচনা করেন জোটের অন্যান্য দেশের নেতারা।

প্রথম দিনের অধিবেশনে ট্রাম্প বলেন, যুক্তরাষ্ট্র চায় জি-সেভেন জোটে রাশিয়াকে পুনরায় অন্তর্ভুক্ত করা হোক। প্রতিক্রিয়ায় জার্মান চ্যান্সেলর বলেন, এটা সম্ভব নয়। কারণ জোটের অন্যান্য দেশ ইউক্রেন সংকটের সমাধান ছাড়া রাশিয়াকে জোটে অন্তর্ভুক্ত করার বিপক্ষে। ইউক্রেনের কাছ থেকে ক্রিমিয়া দখল করার অভিযোগে ২০১৪ সালে এই জোট থেকে রাশিয়াকে বহিষ্কার করা হয়। এর আগে জি-সেভেন ছিল ‘জি-এইট’।

এদিকে শুক্রবার জি-সেভেন জোটের নেতারা যখন বাণিজ্য নিয়ে ‘বিবাদ’ করছিলেন, ঠিক একই সময় রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে পেইচিংয়ে স্বাগত জানান চীনের প্রেসিডেন্ট শি চিনপিং। পুতিন সাংহাই কো-অপারেশন অর্গানাইজেশনের (এসসিও) সম্মেলনে যোগ দিতে এ সফর করছেন।

Previous post সমঝোতার মাধ্যমেই রোহিঙ্গাদের ফেরত: সু চি
Next post কোরআন একাডেমী লন্ডন’র উদ্যোগে কোরআন শরীফ বিতরণ
Close