বিশ্বজুড়ে উত্তেজনা ছড়িয়ে নিজেদের সামরিক বাহিনীকে আরও শক্তিশালী করতে ব্যস্ত ক্ষমতাধর দেশগুলো। চলছে ভয়ঙ্করসব মহড়া, পাশাপাশি বাকযুদ্ধ। আর এক্ষেত্রে দ্রুতগতিতে এগিয়ে যাচ্ছে চীন। এমনকি মার্কিন কিছু সামরিক বিশেষজ্ঞ মনে করছেন, ইতোমধ্যেই সামরিক দিক দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রকে ছাড়িয়ে গেছে চীন।

যুক্তরাজ্যের থিংকট্যাংক ইন্টারন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অব স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজের (আইআইএসএস) বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, সামরিক শক্তি বৃদ্ধিতে যুক্তরাষ্ট্রকে ছাড়িয়ে গেছে চীন। তাদের মতে, চীনের নৌ ও বিমান বাহিনী সবচেয়ে এগিয়ে গেছে।

বিষয়টি উঠে এসেছে ২০১৮ সালের বার্ষিক সামরিক ভারসাম্য প্রতিবেদনেও। সেখানে বলা হয়, অতি দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র (আলট্রা লং রেঞ্জ ব্যালিস্টিক মিসাইল) থেকে শুরু করে পঞ্চম প্রজন্মের যুদ্ধবিমান- এসবের উদ্ভাবন চীনের অগ্রগতি এবং অসাধারণ প্রযুক্তিগত ক্ষমতারই প্রকাশ।

এছাড়া, চীনের নৌবাহিনী-বিমানবাহী রণতরীসহ বেশ কিছু আধুনিক জাহাজ সংযোজন করেছে। গত বছর টাইপ-৫৫ ক্রুজার ছিল দেশটির সামরিক বহরে সংযোজিত সর্বশেষ যুদ্ধ জাহাজ। পাশাপাশি বিমান থেকে বিমানে (এয়ার টু এয়ার) আঘাত করে এমন ক্ষেপণাস্ত্রের ক্ষেত্রে চীন পশ্চিমা শক্তির সঙ্গে পাল্লা দিতে পারে বলেই মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। অন্যদিকে, শব্দের চেয়ে দ্রুতগতি এবং রাডার ফাঁকি দেওয়ার প্রযুক্তিসম্পন্ন চীনের পঞ্চম প্রজন্মের যুদ্ধবিমান আতঙ্ক ছড়িয়েছে বিশ্বজুড়ে।

Previous post গুয়েতেমালায় আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতে নিহত ২৫, আহত শতাধিক
Next post হোয়াইট হাউসে ইফতারের আয়োজন করতে যাচ্ছেন ট্রাম্প
Close