যুক্তরাষ্ট্রের জর্জিয়া অঙ্গরাজ্যের ডিস্ট্রিক্ট-৫ নির্বাচনী এলাকা থেকে রাজ্যের সিনেটর প্রার্থী হিসেবে প্রাথমিক নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছেন বাংলাদেশি শেখ রহমান চন্দন। মঙ্গলবার (২২ মে) অনুষ্ঠিত এ নির্বাচনে ডেমক্র্যাটিক পার্টির এ প্রার্থী চার হাজার দুই ভোট পেয়েছেন, যা মোট ভোটের ৬৮ শতাংশ। তার নিকটতম ডেমক্র্যাটিক পার্টির অপর প্রতিদ্বন্দ্বী কার্ট থম্পসন পেয়েছেন দুই হাজার ১১৭ ভোট।

তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় শেখ রহমান এ জয়কে ‘বাংলাদেশিদের বিজয়’ বলে উল্লেখ করে বাংলাদেশি-এশিয়ান ভোটারসহ ডেমক্র্যাটিক পার্টির সংগঠক ও সদস্যদের কৃতজ্ঞতা জানান। এই এলাকায় রিপাবলিকান পার্টির কোনো প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি। শেখ রহমান ৬৮ শতাংশ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।

আগামী নভেম্বরের ডেমক্র্যাটিক পার্টির পক্ষে তিনিই অঙ্গরাজ্য নির্বাচনে প্রথম বাংলাদেশি প্রার্থী হিসেবে লড়বেন। আর সেটি হবে শুধুমাত্র আনুষ্ঠানিকতা। কারণ, এখানে রিপাবলিকান পার্টির কোনো প্রার্থী নেই।

উল্লেখ্য যে, শেখ রহমান হলেন প্রথম বাংলাদেশি-আমেরিকান এবং প্রথম দক্ষিণ এশিয়ান, যিনি ডেমক্র্যাটিক পার্টির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন।

নরক্রস, লিলবার্ন ও লরেন্সভিল শহর নিয়ে গঠিত এ এলাকায় ৮ বছর ধরে ডেমক্র্যাটিক পার্টির পক্ষ থেকে কার্ট থম্পসন সিনেটর হিসেবে নির্বাচিত হয়ে আসছিলেন। তিনি এ নির্বাচনে হেরে গিয়ে তার সিনেটর পদটি দীর্ঘদিন পর হারাতে চলেছেন।

এ বিজয়ে উল্লাস প্রকাশ করে শেখ রহমানের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির মূখ্য সমন্বয়কারী মুক্তিযোদ্ধা আলী হোসেন এনআরবি নিউজের এ সংবাদদাতাকে বলেন, এটি বাংলাদেশিদের বড় একটি জয়। আর এ বিজয়ের মধ্য দিয়েই মূলধারায় আরোহনের পথ খোলে গেল। শেখ রহমান তার প্রতিটি কর্মকাণ্ডে অভিবাসী সমাজের অধিকার ও মর্যাদাকে প্রাধান্য দেবেন। অভিবাসী সমাজের বিপক্ষে যে কোনো পদক্ষেপ রুখে দিতে সোচ্চার থাকবেন অঙ্গরাজ্য পার্লামেন্টে।

এদিকে, শেখ রহমানের বিজয়ে বাংলাদেশ প্রতিদিনের উত্তর আমেরিকা সংস্করণ তাকে অভিনন্দন জানিয়েছে। শেখ রহমানের এ বিজয় শুধু বাংলাদেশি আমেরিকানদেরই বিজয় নয়, এর মধ্য দিয়ে অভিবাসী সমাজের বিজয়ের পথ সুগম হলো বলে এক বিবৃতিতে বাংলাদেশ প্রতিদিন উল্লেখ করেছে।

দক্ষিণ এশিয়ান আমেরিকান শ্রমিকদের জাতীয় মোর্চা ‘এসাল’র ন্যাশনাল প্রেসিডেন্ট মাফ মিসবাহউদ্দিন আরেক বিবৃতিতে শেখ রহমানের বিজয়ে গভীর সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

উল্লেখ্য, এসালও শেখ রহমানের পক্ষে মাঠে নেমেছিল।

Previous post মালয়েশিয়া প্রবাসীদের সম্মানে ফেনী সমিতি’র ইফতার মাহফিল
Next post সম্মানসূচক ডি-লিট নিলেন শেখ হাসিনা
Close