তুরস্কে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এম, আল্লামা সিদ্দীকী তুরস্কের উপ-প্রধানমন্ত্রী ও বেকির বোজদার সঙ্গে তার কার্যালয়ে সাক্ষাৎ করেছেন। মঙ্গলবার সকালে তারা বৈঠকে মিলিত হন।

উপ-প্রধানমন্ত্রী বেকির বোজদা বাংলাদেশ-তুরস্ক যৌথ অর্থনৈতিক কমিশনের কো-চেয়ার। প্রায় এক ঘণ্টাব্যাপী অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে বাংলাদেশ-তুরস্ক দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্কের বিভিন্ন বিষয় প্রাধান্য পায়। তাছাড়া, উভয় দেশে চলমান রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক প্রক্রিয়ার উপর আলোকপাত করা হয়। উপ-প্রধানমন্ত্রী বেকির বোজদা আর্থ-সামাজিক ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অর্জন প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্ব এবং প্রজ্ঞার ভূঁয়সী প্রশংসা করেন। তিনি আশা প্রকাশ করেন যে, এ উন্নয়নের ধারা আগামীতে অব্যাহত থাকবে।

উভয়পক্ষ যত দ্রুত সম্ভব যৌথ অর্থনৈতিক কমিশনের পরবর্তী সভা আয়োজনের উপর গুরুত্বরোপ করেন। এসময় রাষ্ট্রদূত আগামী মাসগুলোতে অর্থনৈতিক, বাণিজ্যিক, শিক্ষা এবং সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক জোরদারকরণে দূতাবাসের পরিকল্পিত কার্যক্রম সম্পর্কে উপ-প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করেন। প্রত্যুত্তরে উপ-প্রধানমন্ত্রী উক্ত কার্যক্রমের সাফল্য কামনা করেন এবং তা বাস্তবায়নে তার সরকারের সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দেন।

তিনি আশা প্রকাশ করেন যে, তুরস্কের বেসরকারি খাত বিনিয়োগকারী এবং ব্যবসায়ী হিসাবে বাংলাদেশের ক্রমবর্ধিষ্ণু অর্থনীতিতে আরও সক্রিয় ভূমিকা পালন করবে। বৈঠক শেষে রাষ্ট্রদূত উপ-প্রধানমন্ত্রী বেকির বোজদাকে সম্প্রতি তুর্কী ভাষায় প্রকাশিত বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ উপহার দেন। হৃদ্যতাপূর্ণ পরিবেশে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।