বল টেম্পারিং কাণ্ডে তোলপাড় ক্রিকেট বিশ্ব। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে কেপটাউন টেস্টে বল বিকৃতির ঘটনায় এক বছর নিষিদ্ধ হন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ ও ডেভিড ওয়ার্নার। যাকে দিয়ে বলের বিকৃতি করানো হয় সেই ব্যানক্রফটকে ৯ মাসের জন্য নিষিদ্ধ করে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

তবে বল টেম্পারিংয়ের এই সামান্য ইস্যুতে এত বড় শাস্তি দেয়াটা ক্রিকেট সংশ্লিষ্টদের কেউই মেনে নিতে পারছেন না। অনেকেই বলছেন, অপরাধের তুলনায় শাস্তির পরিমাণ বেশি হয়েছে।

ক্রিকেট বিশ্লেষকদের মতো একই সুরে কথা বলছেন ভারতের তারকা ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর। তার দাবি এমন ঘটনা যদি ভারতীয় কোনো ক্রিকেটার করত তাহলে এত বড় সিদ্ধান্ত নিতে পারত না ক্রিকেট বোর্ড।

গম্ভীর বলেন, আমার প্রশ্ন হলো, যদি ভারতীয় দলের কোনও মহাতারকা ক্রিকেটার এই একই অপরাধ করতেন তবে কি বিসিসিআই তাকে এক বছরের সাসপেন্ড করতে পারত?

নারী কেলেঙ্কারি নিয়ে বিতর্কিত মোহাম্মদ সামির বিরুদ্ধে একাধিক মামলা হয়। এত কিছুর পরও তার পাশেই থাকছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)।

সামির উদাহরণ টেনে গম্ভীর বলেন, পাঁচটি জামিন অযোগ্য ধারায় মোহাম্মদ সামির বিরুদ্ধে কলকাতা পুলিশ মামলা করেছে। অথচ বোর্ড তার পাশেই থাকছে। এমনকি সামিকে আইপিএল খেলার অনুমতিও দিয়েছে। অথচ স্মিথ-ওয়ার্নারদের প্রত্যেকের ২০ কোটি টাকার বেশি ক্ষতি হবে।

Previous post আগামী নির্বাচন ১৯৭০ সালের মতো গুরুত্বপূর্ণ
Next post ক্যালিফোর্নিয়া আ.লীগের জাতীয় গণহত্যা দিবস ও স্বাধীনতা দিবস পালন
Close