মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের তদন্তে ডোনাল্ড ট্রাম্পের পক্ষে কাজ করা তার ব্যক্তিগত আইনি দলের প্রধান আইনজীবী জন ডাওড পদত্যাগ করেছেন।

বৃহস্পতিবার সিএনএনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

পদত্যাগের পর সিএনএনকে ডাওড বলেন, ‘আমি প্রেসিডেন্টকে ভালোবাসি এবং তার শুভ কামনা করি।’

এতে বলা হয়েছে, ২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের অভিযোগের তদন্ত থাকা দেশটির কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআইয়ের স্পেশাল কাউন্সেল রবার্ট মুয়েলারের ওপর প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের অসন্তোষ বৃদ্ধির মাঝেই জন ডাওড পদত্যাগ করলেন।

সম্প্রতি এক বিবৃতিতে জন ডাওড বলেছিলেন, ‘এই তদন্ত শেষ হওয়া উচিত।’ প্রথমে এই বিবৃতিকে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের পক্ষ থেকে দেওয়া হয়েছে দাবি করলেও পরে এটাকে একান্তই তার ব্যক্তিগত মন্তব্য বলে দাবি করেন ডাওড।

জন ডাওড পদত্যাগ করার মার্কিন প্রেসিডেন্টের উপদেষ্টা জে সেকুলো বলেন, ‘জন ডাওড একজন বন্ধু এবং তিনি আমাদের আইনি দলের গুরুত্বপূর্ণ একজন সদস্য ছিলেন। প্রেসিডেন্টকে প্রতিনিধিত্ব করে আমাদের চলমান কাজ এবং এই তদন্তে নিয়োজিত এফবিআইয়ের স্পেশাল কাউন্সেল আমাদের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।’

এদিকে বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এফবিআইয়ের তদন্তে জন ডাওড মার্কিন প্রেসিডেন্টের আইনি দলের প্রধান হলেও ট্রাম্প অব্যাহতভাবে তার পরামর্শ এড়িয়ে যাচ্ছিলেন বলে সম্প্রতি অভিযোগ উঠেছিল। এছাড়া এফবিআইয়ের তদন্ত দলের প্রধান রবার্ট মুয়েলারকে সামলাতে জন ডাওডের সামর্থ্যের প্রতি ট্রাম্প আস্থা হারিয়েছিলেন বলেও বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে উঠে আসে। এরই মধ্যে বৃহস্পতিবার পদত্যাগ করলেন ডাওড।

প্রসঙ্গত, গত মাসে রাশিয়ার ১৩ নাগরিকের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হস্তক্ষেপের অভিযোগ আনে এফবিআই, যে ঘটনাকে তদন্তে বড় ধরনের অগ্রগতি হিসেবে দেখা হয়। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপের অভিযোগ তদন্তের দায়িত্বে থাকা এফবিআইয়ের স্পেশাল কাউন্সেল রবার্ট মিউয়েলারের তদন্তেই রাশিয়ার এই ১৩ নাগরিকের নাম উঠে আসে।

Previous post যুক্তরাষ্ট্রের নতুন নিরাপত্তা উপদেষ্টা বোল্টন
Next post কমিশনার হলেন লস এঞ্জেলেস প্রবাসী ড্যানী তৈয়ব
Close