প্রখ্যাত ভাস্কর মুক্তিযোদ্ধা ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী আর নেই। মঙ্গলাবার দুপুরে রাজধানীর ল্যাব এইড হাসপাতালে তিনি ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। অসুস্থতা নিয়ে এই হাসপাতালের করনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি।
১৯৪৭ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি খুলনায় তিনি জন্মগ্রহণ করেন। বাবা-মায়ের ১১ সন্তানের মধ্যে প্রিয়ভাষিণী সবার বড়। তার স্বামী আহসান উল্লাহ আহমেদ ছিলেন প্রথম শ্রেণীর সরকারি কর্মকর্তা। তিনি খুলনার পাইওনিয়ার গার্লস স্কুল থেকে এসএসসি এবং খুলনা গার্লস স্কুল থেকে এইচএসসি ও ডিগ্রি পাস করেন।

১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে তিনি গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন। মুক্তিযুদ্ধে অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ এ বীরঙ্গনা রাষ্ট্রী সর্বোচ্চ পুরষ্কার স্বাধীনতা পদকে ভূষিত হন।
১৯৭৭ সাল থেকে ১৯৯৮ পর্যন্ত প্রিয়ভাষিণী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেছেন। মাঝে কিছুদিন স্কুলে শিক্ষকতাও করেছেন। তিনি ইউএনডিপি, এফএও, কানাডিয়ান দূতাবাস প্রভৃতি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেছেন। তিনি ভাস্বর্য শিল্পের সঙ্গে জড়িত হয়ে সুনাম কুড়ান।
ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণীর মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

Previous post প্রিয়ভাষিণীর মরদেহ শহীদ মিনারে নেওয়া হবে বৃহস্পতিবার
Next post ছলচাতুরী করে খালেদার মুক্তি বিলম্বিত : ফখরুল
Close