কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদীদল ক্যালিফোর্নিয়া শাখা বাংলাদেশ কনসুলেট লস এঞ্জেলেসের সামনে এক ঘন্টার অবস্থান ও প্রতিবাদ কর্মসূচী পালন করে মঙ্গলবার ১৩ই ফেব্রুয়ারী। কর্মসূচীকে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই কন্সুলেটে নেওয়া হয় অতিরিক্ত নিরাপত্তা। কনসুলেটের কর্মচারীরা ছয় তলার অফিস ছেড়ে নিচ তলায় প্রধান ফটকে অভ্যর্থনা ও নিরাপত্তা কর্মচারীদের সাথে অবস্থান নেন। কনসাল জেনারেল ডেকে আনেন লস এঞ্জেলেস পুলিশ ডিপার্টমেন্টের অফিসারদের। এল এ পিডির সার্জেন্ট কাস্তানেদা জানান আনুমানিক ২০জন পুলিশ অফিসার কনসুলেট অফিস ঘিরে নিরাপত্তা বলয় সৃষ্টি করে এই কর্মসূচীর উপর নজর রাখছে। তিনি নিজেও প্রতিবাদ কর্মসূচীর অদূরে গাড়িতে বসে সতর্ক পাহারায় ছিলেন বি এন পি এর প্রতিটা নেতা কর্মী সমাবেস্থল ত্যাগ করা পর্যন্ত।

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত ছিল সমাবেস্থল। যেন ঢাকার আন্দোলনের আগুনের উত্তাপ পাওয়া যাচ্ছিল এই লস এঞ্জেলেসেও। অবস্থান কর্মসূচির শেষে সহসভাপতি সাইফুল আনসারী চপল এর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এম ওয়াহিদ রহমানের পরিচালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার তড়িৎ নি:শর্ত মুক্তি দাবী করে বক্তব্য রাখেন সহসভাপতি নিয়াজ মোহাইমেন, আফজাল হোসেন শিকদার, জুনেল আহমেদ, অপু সাজ্জাদ, কমিউনিটি নেতা আবুল ইব্রাহিম, যুগ্মসম্পাদক শাহাদাত হোসেন শাহীন, মোহাম্মদ রফিকুজ্জামান জুয়েল, দেলোয়ার চৌধুরী, শিক্ষা সম্পাদক সাঈদ খান, আলমগীর হোসেন, আসাদুজ্জামান রাজু, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোঃ শফিকুল ইসলাম পলাশ, প্রমুখ। কর্মসূচী শেষে কনসুলেটের উর্ধতন কর্মকর্তাকে নিচে ডেকে এনে ক্যালিফোর্নিয়া বি এন পি এর পক্ষ থেকে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি চেয়ে বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।