আন্তর্জাতিক মহলে আতঙ্ক ছড়িয়ে নিজেদের সামরিক বাহিনীকে আরও শক্তিশালী করতে ব্যস্ত বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশগুলো। আর তারই জের ধরে ঠাণ্ডা লড়াইয়ের মানসিকতা থেকে বেরিয়ে আসুক যুক্তরাষ্ট্র, এমনই বক্তব্য ফের উঠে এলো চীনের পক্ষ থেকে। শুক্রবার ওয়াশিংটন তাদের পরমাণু শক্তিবৃদ্ধির বিষয়ে একটি ডকুমেন্ট প্রকাশের পরই নড়েচড়ে বসে চীন। পাশাপাশি ওয়াশিংটনের উদ্দেশ্যে চীন জানায়, নিজের সামরিক শক্তিকে ছোট করে দেখা উচিত নয়।

কার্যত উপদেশের সুরেই বেইজিংয়ের বক্তব্য, যুক্তরাষ্ট্রের কাছে বিশ্বের সবথেকে বেশি পরমাণু হাতিয়ার রয়েছে, তাদের উচিত শান্তি এবং উন্নয়নের বিষয়টিতে বেশি জোর দেওয়া। মার্কিন শক্তির এই পরমাণু অস্ত্র বৃদ্ধির বিষয়টি সমালোচনা করে রাশিয়াও জানায়, যুক্তরাষ্ট্রের এই পদক্ষেপ সমস্যা আরও বাড়িয়ে তুলবে।

এদিকে ফেব্রুয়ারির শুরুতে মার্কিন সেনার জারি করা রণনীতিতে চীন এবং রাশিয়াকে “revisionist powers” হিসেবে বলা হয়েছে। পাশাপাশি মার্কিন আধিকারিকদের মতে রাশিয়াকে প্রত্যুত্তর দেওয়ার জন্য আমেরিকার কম শক্তিশালী পরমাণু অস্ত্রই যথেষ্ট।