বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার দুর্নীতি মামলার রায় প্রদানের তারিখ ঘিরে আটলান্টিকের এপারে পরস্পর বিরোধী কর্মসূচিতে প্রবাসীদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

যুক্তরাষ্ট্র বিএনপি আগামী ৫ ফেব্রুয়ারি নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সামনে এবং ৭ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা থেকে রাতভর জ্যাকসন হাইটসে অবস্থান কর্মসূচি ঘোষণার পরই যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগও প্রায় একই ধরনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। উভয় পক্ষ থেকেই বড় ধরনের শো-ডাউনের প্রস্তুতি চলছে। এবং বিষয়টি ইতিমধ্যেও সিটি প্রশাসন এবং পুলিশের গোচরেও আনা হয়েছে।

এদিকে, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে চার্জশিট প্রদানের পর বিচার চলছে বলে মার্কিন প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়কে অবহিত করেছেন যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের সভাপতি। ‘বাংলাদেশের বিচার ব্যবস্থা সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ এবং এই মামলার বিচারে সরকারের ন্যূনতম হস্তক্ষেপ নেই বলেও অবহিত করেছেন সংশ্লিষ্ট সকলকে’-এ তথ্য জানান যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ।

               যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের ‘মিট দ্য প্রেস’।

এর আগে, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির পক্ষ থেকে ওয়াশিংটন ডিসিতে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং ক্যাপিটল হিলে প্রদত্ত স্মারকলিপিতে ‘বেগম খালেদা জিয়া রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

১ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার রাতে যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সংবাদ সম্মেলন থেকেও একই ধরনের অভিযোগ করা হয়েছে।

       যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সংবাদ সম্মেলন।

 

এদিকে, গত মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের ‘মিট দ্য প্রেস’-এ উল্লেখ করা হয়েছে যে, এই প্রবাসে মিথ্যাচার চালালে তার দাঁতভাঙা জবাব দেয়া হবে। কারণ, খালেদা জিয়ার বিচার হচ্ছে দেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী।