গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় হঠাৎ একটি বাড়িতে শক্তিশালী বিস্ফোরণে তিনজন নিহত হয়েছেন। বুধবার বিকেলে উপজেলার কামারদহ ইউনিয়নের নয়াপাড়া গ্রামের কুয়েতপ্রবাসী বোরহান উদ্দিনের বাড়িতে এ বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই বাড়ির মালিকসহ তিনজন নিহত হন।

এদিকে এ ঘটনায় হাবিবুর নামের একজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ঘটনাস্থল থেকে আটক করা হয়েছে।

আটক হাবিবুর বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার কাশিপুর গ্রামের বাসিন্দা বলে জানা গেছে। এ ছাড়া নিহত বোরহান উদ্দিনের পরিবারের বেশ কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।

নিহতেরা হলেন উপজেলার নয়াপাড়া গ্রামের ওই বাড়ির মালিক বোরহান উদ্দিন প্রধান (৩৬), একই গ্রামের কবির মিয়ার ছেলে অহেদুল ইসলাম (৩৫) ও মহিমাগঞ্জ ইউনিয়নের কুমিরাডাঙ্গার মৃত তৈয়ব আলীর ছেলে রানা মিয়া (৩২)।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, আজ বিকেল সোয়া ৪টার দিকে হঠাৎ ওই প্রবাসীর বাড়িতে শক্তিশালী বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে বসতঘরের চালের টিন উড়ে যায় এবং বাড়ির মালিকসহ দুজনের দেহ ছিন্নভিন্ন হয়ে যায়। হাসপাতালে নেওয়ার পথে অপরজনের মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে ওই বাড়িটি ঘিরে রেখেছে।

গাইবান্ধার পুলিশ সুপারসহ অন্য পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তবে কী ধরনের বিস্ফোরণের ঘটনা এটি, তা এখনও জানা সম্ভব হয়নি। বোমা বিশেষজ্ঞ দলকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। তারা এসে নিশ্চিত করার পর বিস্ফোরণ সম্পর্কে জানানো সম্ভব হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ সুপার মো. তৌহিদুল ইসলাম।

গোবিন্দগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদী হাসান বলেন, ‘কোনো জঙ্গি সংগঠনের নেতাকর্মী গোপনে বোরহান উদ্দিনের বাড়িতে নাশকতামূলক কাজ করেছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে। কিন্তু হঠাৎ তা বিস্ফোরিত হলে বাড়ির মালিক বোরহান উদ্দিনসহ তিনজন নিহত হন।’