ঢাকার কেরানীগঞ্জে প্রবাসীর স্ত্রীর সঙ্গে রাত কাটাতে গিয়ে যৌন উত্তেজক ট্যাবলেটসহ স্থানীয় জনতার কাছে হাতেনাতে আটক হয়েছেন ঢাকা জেলা কৃষক লীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম রাজ। পরে তাকে গণধোলাই দিয়ে কেরানীগঞ্জ মডেল থানা পুলিশের কাছে তুলে দেন স্থানীয়রা। গ্রেপ্তার হওয়া রাজ ঢাকা জেলা কৃষক লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও কেরানীগঞ্জ উপজেলার নবাবচর গ্রামের আপ্তু মিয়ার ছেলে।

জানা যায়, দীর্ঘদিন ধরে ওই গৃহবধূর বাসায় অবৈধ যাতায়াত করতেন কৃষক লীগ নেতা সিরাজুল ইসলাম রাজ। একইভাবে গত মঙ্গলবার রাতে ওই গৃহবধূর বাড়িতে তার থাকার রুমে প্রবেশ করেন কৃষক লীগ নেতা। বিষয়টি ওই গৃহবধূর বাড়ির আশেপাশের লোকজন টের পেলে ভোরের দিকে তাকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন। পরে এলাকাবাসীর মারধরের একপর্যায়ে রাজ পরকীয়া ও অবৈধ মেলামেশার কথা স্বীকার করেন। খবর শুনে কেরানীগঞ্জ মডেল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে কৃষক লীগ নেতাসহ ওই নারীকে থানায় নিয়ে যায়।

ঢাকা জেলা কৃষক লীগের সভাপতি জাকি উদ্দীন আহমেদ রিন্টু ঘটনার ব্যাপারে বলেন, ‘আমি ঘটনাটি জানতে পেরেছি। ঘটনার সত্যতা প্রমাণিত হলে পরবর্তীতে আলোচনা সাপেক্ষে তাকে সংগঠনের আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কোনো ব্যক্তির দায় দল বহন করবে না।’

এ বিষয়ে কেরানীগঞ্জ মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী মাইনুল ইসলাম বলেন, ‘প্রবাসীর স্ত্রীর সঙ্গে অবৈধ মেলামেশার অভিযোগে সিরাজুল ইসলাম রাজকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পুলিশ বাদী হয়ে তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।’