কাতার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাসচিব ড. আহমাদ হাসান আল হাম্মাদির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. জসীম উদ্দিন। গতকাল মঙ্গলবার এ সাক্ষাতে বাংলাদেশ-কাতারের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন তারা। বৈঠকে দক্ষ-পেশাজীবী বাংলাদেশি কর্মী নিয়োগে কাতার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাসচিবকে তাগিদ দেন রাষ্ট্রদূত।

বৈঠকে করোনাভাইরাস মহামারির চলাকালীন প্রবাসী বাংলাদেশিদের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করার জন্য কাতার সরকারকে রাষ্ট্রদূত ধন্যবাদ জানান। এ ছাড়া দুদেশের অর্থনীতিতে তাদের অবদানের কথা তুলে ধরে কাতারে বাংলাদেশি কমিউনিটির স্বার্থ সংশ্লিষ্ট নানা বিষয় নিয়ে পররাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে আলোচনা করেন মো. জসীম উদ্দিন।

কাতারের পররাষ্ট্র সচিব নানা ক্ষেত্রে বাংলাদেশি নাগরিকদের অবদানের প্রশংসা করেন এবং তাদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সহায়তার আশ্বাস দেন। এ সময় রাষ্ট্রদূত মো. জসীম উদ্দিন বাংলাদেশ থেকে আরও দক্ষ কর্মী এবং পেশাজীবী নিয়োগের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

এ প্রসঙ্গে কাতারের প্রশাসনিক উন্নয়ন, শ্রম ও সমাজ বিষয়ক মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে আটকা পড়া প্রবাসী বাংলাদেশিদের কাতারে প্রত্যাবর্তনসহ অন্যান্য বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয় বলে রাষ্ট্রদূত পররাষ্ট্র সচিবকে অবহিত করেন।

বাংলাদেশ-কাতার বাণিজ্য সম্পর্ককে দুদেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের দ্বিতীয় অন্যতম ভিত্তি হিসেবে উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূত বাণিজ্য সম্পর্ক জোরদার করার উপর গুরাত্বারোপ করেন। পররাষ্ট্র সচিব বাণিজ্য সম্পর্ক জোরদার করার বিষয়ে রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে একমত প্রকাশ করে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে দুদেশের ব্যবসায়ীদের মধ্যে যোগাযোগ বৃদ্ধি এবং এ সংক্রান্ত সমঝোতা স্মারক সইয়ের বিষয়ে সমর্থন জানান। অন্যান্য বিষয়ের মধ্যে উচ্চ পর্যায়ের সফর বিনিময়, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী পর্যায়ে দ্বিতীয় ফরেন অফিস কনসালটেশন (এফওসি) অনুষ্ঠান, বিনিয়োগ বৃদ্ধি, আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সহযোগিতা বৃদ্ধি, রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে কাতার সরকারের অব্যাহত সমর্থন নিয়ে আলোচনা হয়।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এশিয়া বিভাগের প্রধান অ্যাম্বেসেডর খালিদ ইব্রাহিম আল-হামার এবং দূতাবাসের কাউন্সেলর (রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক) মো: মাহবুর রহমান।