টাঙ্গাইলে গণধর্ষণের মামলায় পাঁচ আসামিকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এছাড়াও প্রত্যেক আসামিকে এক লাখ টাকা করে জরিমানাও করা হয়েছে। ২০১২ সালে জেলার ভূঞাপুর উপজেলায় এক নারীকে অপহরণের পর ধর্ষণ করেন দণ্ডিতরা।

১৫ অক্টোবর, বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক খালেদা ইয়াসমিন এই রায় ঘোষণা করেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- সাগর চন্দ্র, সুজন মনি ঋষি, রাজন, সঞ্জিত এবং গোপি চন্দ্র শীল। এই রায় ঘোষণার সময় সঞ্জিত ও গোপী চন্দ্র শীল আদালতে উপস্থিত ছিলেন। আর অপর তিন আসামি জামিন নেয়ার পর থেকে পলাতক রয়েছেন।

এ বিষয়ে টাঙ্গাইল আদালতের পরিদর্শক তানভীর আহমেদ জানান, ২০১২ সালের জানুয়ারি মাসে ভূঞাপুরে এক নারীকে অপহরণ করে গণধর্ষণের মামলায় পাঁচ আসামিকে মৃত্যুদণ্ড প্রদান করেছেন আদালত। এছাড়াও আসামিদের এক লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন-২০০০ সংশোধন করে অধ্যাদেশ আকারে জারির জন্য এর খসড়ায় নীতিগত ও চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে সরকার। ১২ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার ভার্চুয়াল বৈঠকে এই অনুমোদন দেয়া হয়। এরপর গত মঙ্গলবার রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের স্বাক্ষর শেষে অধ্যাদেশ জারি হয়।