বিতর্কিত দক্ষিণ চীন সাগরে বেইজিংয়ের সামরিক বাহিনীর মহড়ার সময় আকাশসীমা লঙ্ঘন করে মার্কিন গুপ্তচর বিমানের অনুপ্রবেশের পর নতুন উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। ক্রমবর্ধমান এই উত্তেজনার মাঝে যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্ক করতে বুধবার দু’টি ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে চীন।

দক্ষিণ চীন সাগরে নিজেদের জলসীমায় এই ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানো হয় বলে সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টকে (এসসিএমপি) জানিয়েছে চীনের সামরিক বাহিনীর একটি সূত্র।

এসসিএমপি বলছে, বুধবার কিংহাই প্রদেশ থেকে ডিএফ-২৬বি নামের একটি ইন্টারমেডিয়েট রেঞ্জের ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছে বেইজিং। এছাড়া ঝেজিয়াং প্রদেশ থেকে অপর একটি মাঝারি পাল্লার ডিএফ-২১ডি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে।

দক্ষিণ চীন সাগরের নো-ফ্লাই জোন এলাকায় মার্কিন সামরিক বাহিনীর অনুপ্রবেশের জবাবে এ দুটি ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছে চীন।

বেইজিংয়ের ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার প্রতিক্রিয়ায় মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক এসপার বলেছেন, আন্তর্জাতিক আইন মানার বাধ্যবাধকতা বারবার লঙ্ঘন করছে চীন। দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ায় চীন তাদের পেশী দেখাচ্ছে বলে মনে হচ্ছে।

অজ্ঞাত একটি সূত্রের বরাত দিয়ে সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট বলছে, হাইনান প্রদেশ এবং বিতর্কিত প্যারাসেল দ্বীপের মধ্যবর্তী স্থানে ক্ষেপণাস্ত্র দুটির পরীক্ষা চালিয়েছে চীন। এর আগে মঙ্গলবার চীনের সামরিক বাহিনীর মহড়ার সময় বিনাঅনুমতিতে নো-ফ্লাই জোন এলাকায় অনুপ্রবেশ করে মার্কিন ইউ-২ গুপ্তচর বিমান।

পরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক বার্তায় যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত লিউ জিয়াওমিং বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকাণ্ড চীনের স্বাভাবিক মহড়া এবং প্রশিক্ষণ কার্যক্রম মারাত্মকভাবে ব্যাহত করছে।