প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন অনেক দেশ ও সংস্থা তৈরী করার চেষ্টা করছে। প্রথম দেশ হিসেবে আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিনের চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়ার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে রাশিয়া। খবর মস্কো টাইমস’র।

দেশটির কর্মকর্তারা জানান, মস্কোভিত্তিক গামালিয়া ইনস্টিটিউটের তৈরীকৃত ভ্যাকসিনটি আগামী ১০ আগস্ট অথবা তারও আগে চূড়ান্ত অনুমোদন পেতে পারে বলে আশা করছেন। ভ্যাকসিনটি জনসাধারণের ব্যবহারের জন্য অনুমোদিত হবে। তবে মহামারি মোকাবিলায় নিয়োজিত সম্মুখসারির স্বাস্থ্য কর্মীরা প্রথমে ভ্যাকসিনটি পাবেন।

গামালিয়া ইনস্টিটিউটের এই ভ্যাকসিন তৈরি ও গবেষণা কাজে অর্থায়ন করেছে রাশিয়ার সার্বভৌম সম্পদ তহবিল। সোভিয়েত আমলে ১৯৫৭ সালে বিশ্বের প্রথম স্যাটেলাইটের সফল উৎক্ষেপনের কথা উল্লেখ করে রুশ সার্বভৌম সম্পদ তহবিলের প্রধান কিরিল দিমিত্রিয়েভ বলেন, ‘এটি একটি স্পুটনিক মুহূর্ত।’ তিনি বলেন, ‘স্পুটনিকের হুইসেল শুনে আমেরিকানরা অবাক হয়েছিলেন। এই ভ্যাকসিনের ক্ষেত্রেও একই অনুভূতি হবে। ভ্যাকসিন আনার কাজে রাশিয়াই প্রথম হবে।’

এদিকে এ ভ্যাকসিনের জন্য চূড়ান্ত অনুমোদ দেওয়ার কথা ভাবলেও এর পরীক্ষা ফলাফল প্রকাশ করেনি রাশিয়া। তবে ভ্যাকসিনটির কার্যকারিতার ব্যাপারে সত্যতা যাচাই করা সম্ভব হয়নি বলে দাবি করছে সিএনএন।

তবে সমালোচকরা এটিকে রাশিয়াকে বৈশ্বিক বৈজ্ঞানিক শক্তি হিসেবে তুলে ধরতে আগ্রহী। মানবদেহে পরীক্ষা অসম্পূর্ণ থাকায় ভ্যাকসিনটি নিয়ে ব্যাপক উদ্বেগ রয়েছে।

দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৮ লাখ ২২ হাজারের বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন এবং মারা গেছেন ১৩ হাজার ৪৮৩ জন বলে জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয় জানিয়েছে।