সোনালী একচেঞ্জ বন্ধ হবার পর,লসএঞ্জেলেস প্রবাসী বাংলাদেশিদের রেমিটেন্স সহজে বাংলাদেশে পাঠাবার সুযোগ করে দিতে স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক লিটল বাংলাদেশের কেন্দ্রস্থলে একটি মানি ট্রান্সফার শাখা উদ্বোধন করে । এই শাখাটি উদ্বোধন হবার পর বাংলাদেশে টাকা পাঠাতে বেশ সহজ হয় । কিন্তু এই অফিসে কর্মরত এক কর্মকর্তার দেশীয় রাজনীতিতে সক্রিয়ভাবে জড়িত এবং দলীয় কোন্দলে জড়িয়ে পড়ার কারণে গ্রাহকদের মাঝে মাঝেই ভোগান্তিতে পড়তে হয় । স্ট্যান্ডার ব্যাংকের কার্যালয়ে রাজনৈতিক আড্ডার কারণে অনেক সাধারণ মানুষ ও মহিলা গ্রাহকরা টাকা পাঠাতে বিব্রত হয় । সম্প্রতি এই অফিসের এক কর্মকর্তার ছুটি ও আরেক কর্মকর্তা গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা জনাব সালমান এফ রহমান এর অর্থনৈতিক বিষয়ক এক সেমিনারের সামনে বিক্ষোভ করতে গিয়ে ব্যাংক বন্ধ রেখে চলে যায় । সাধারণত বাংলাদেশিরা কাজ শেষে বিকালে টাকা পাঠাতে সাচ্ছন্দ্য বোধ করে । কিন্তু ঐদিন বিকালে বেশ কিছু গ্রাহক অফিস বন্ধ পেয়ে ফিরে যায় । এই নিয়ে প্রবাস বাংলার কাছে কয়েকজন গ্রাহক অভিযোগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে । তারা আরো অভিযোগ করেছে উক্ত কর্মকর্তার রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতার কারণে ব্যাংকে যে আড্ডা চলে,সে কারণে গ্রাহকরা এখানে অপেক্ষা করতে পারেনা । নিয়মিত গ্রাহকরা এই সমস্যার সমাধানের জন্য এমনটিই দাবি করে প্রবাস বাংলার কাছে ।