Read Time:3 Minute, 8 Second

দক্ষিণ ও পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর জোট বিমসটেকের প্রথম সন্ত্রাসবিরোধী সামরিক মহড়া আজ সোমবার শুরু হচ্ছে। ভারতের পুনেতে আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এই মহড়া চলবে। এতে ভারত ছাড়াও বাংলাদেশ, ভুটান, মিয়ানমার ও শ্রীলংকার সেনাসদস্যরা অংশ নেবেন। তবে মহড়ায় বিমসটেকের সদস্য দেশ নেপাল ও থাইল্যান্ড কেবল পর্যবেক্ষক পাঠাবে।

খবরে জানানো হয়, মাইলেক্স-২০১৮ নামে এ মহড়ায় অংশগ্রহণকারী দেশগুলো সেনা প্লাটুন আকারের বহর পাঠাবে। তবে নেপাল ও থাইল্যান্ড এতে পর্যবেক্ষক পাঠাচ্ছে। মহড়ায় নেপালের তিন পর্যবেক্ষক যোগ দেবেন। এ ছাড়া সমাপনী অনুষ্ঠানে নেপালের সেনাপ্রধানের উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও অজ্ঞাত কারণে তা বাতিল করা হয়েছে। আর থাইল্যান্ড তাদের পূর্ব প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী কেবল পর্যবেক্ষক পাঠাবে।

এদিকে মহড়ায় নেপালের অংশগ্রহণ না করার বিষয়টি ভালোভাবে নিচ্ছে না এশিয়ার সুপারপাওয়ার ভারত। দেশটির বিভিন্ন গণমাধ্যমে নেপালের এই সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা করা হয়েছে। এদিকে ভারতীয় গণমাধ্যম এই মহড়ায় নেপালের যোগ না দেওয়ার কারণ হিসেবে দেশটির প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা অলি সরকারের চীন ঘনিষ্ঠ মনোভাবকে দায়ী করেছে। তারা বলছে, নিজ দলে সমালোচনা সত্ত্বেও চীনকে খুশি করতেই কেপি শর্মা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

এর আগে গত ৩০ ও ৩১ আগস্ট নেপালের কাঠমান্ডুতে বিমসটেক নেতাদের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এরপরই গত শনিবার কেপি শর্মার প্রেস উপদেষ্টা এক সংবাদ সম্মেলনে সামরিক মহড়ায় নেপালের না যাওয়ার বিষয়টি জানান। এটি নেপাল সরকারের আনুষ্ঠানিক সিদ্ধান্ত বলেও জানানো হয়।

এ ছাড়া চলতি সপ্তাহে নেপালের পররাষ্ট্র্রমন্ত্রী প্রদীপ কুমার গাওয়ালি বলেছিলেন, সর্বশেষ বিমসটেক সম্মেলনে এই যৌথ সামরিক মহড়ার বিষয়ে কোনো আলোচনা হয়নি। এমনকি এ বিষয়ে কোনো চুক্তিতেও পৌঁছানো যায়নি। বিমসটেক সাত দেশের একটি পরিপূর্ণ উন্নয়ন ফোরাম। সামরিক মহড়া এর অগ্রাধিকার তালিকায় পড়ে না।

সূত্র :  সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %
Previous post দক্ষিণ সুদানে বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ১৯
Next post লস এঞ্জেলেসে লাইভ ইন কনসার্ট একটি সফল প্রযোজনা
Close