আমেরিকায় জন্মগ্রহণকারি বাংলাদেযত প্রজন্মকে বাঙালি সংস্কৃতির সাথে সম্পৃক্ত রেখে মার্কিন রাজনীতিতে জোরদার ভূমিকায় অবতীর্ণ করা, জাতিসংঘের শহর নিউইয়র্কে বাংলাদেশ কন্স্যুলেট জেনারেলের অফিস, কালচারাল সেন্টারসহ ‘বঙ্গবন্ধু ভবন’ স্থাপন এবং জনবান্ধব কূটনীতিকে আরো সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নেয়ার সংকল্প ব্যক্ত করলেন নতুন কন্সাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুন্নেসা।

গত বৃহস্পতিবার কন্স্যুলেট ভবনে কর্মরত সাংবাদিকদের সাথে শুভেচ্ছা-বিনিময়কালে নিউইয়র্কে প্রথম নারী কন্সাল জেনারেল হিসেবে সাদিয়া আরো বলেন, বহুজাতিক এ সমাজে বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ কীভাবে এগুচ্ছে তারই সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনার বিচক্ষণতাপূর্ণ নেতৃত্বে-তা আন্তর্জাতিক বন্ধুদের কাছে বিস্তারিতভাবে অবহিত করতে মিডিয়ার সহযোগিতার বিকল্প নেই। মিডিয়ার ওপর ভরসা করেই বাংলাদেশ যে ‘অভিনব উন্নয়নের রোল মডেল’ সে তথ্য সর্বস্তরে প্রচার করতে চাই। মানবিক যোগাযোগ বাড়াতে চাই।

এ সময় জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি ও রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন বলেছেন, নিউইয়র্ক এবং নিউ ইংল্যান্ড অঞ্চলের সাড়ে ৪ লাখেরও বেশি প্রবাসীর সেবা প্রদানের স্থান হচ্ছে এই কন্স্যুলেট অফিস। প্রয়োজনের চেয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারির সংখ্যা কম হলেও সকলেই ন্যূনতম গাফিলতি ছাড়া সর্বোচ্চ চাপ নিয়ে সেবা প্রদানের সক্রিয় রয়েছেন। দৈনিক আড়াই শতাধিক মানুষ আসছেন বিভিন্ন কাজের জন্য। এটি সম্ভব হচ্ছে বাঙালি বলেই। কারণ, আমরা সকলেই বাস্তবতাকে অকৃপণচিত্তের মেনে নিয়ে কাজে আগ্রহী।

রাষ্ট্রদূত উল্লেখ করেন, এমন একটি কর্মপরিবেশে হয়তো কেউ ফোন করে সাথে সাথে কাউকে না পেয়ে ক্ষুব্ধ হন কিংবা সশরীরে অফিসে এসেও ধৈর্য ধারণ করতে চান না অনেকে। আমি সকলের প্রতি অনুরোধ রাখবো বস্তুনিষ্ঠ সমালোচনার-যা থেকে আমরা সংশোধিত হবার সুযোগ পেতে পারি।

এ সময় ওয়াশিংটনে বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রেস সেক্রেটারি শামীম আহমেদ, ডেপুটি কন্সাল জেনারেল শাহেদুল ইসলাম, জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী মিশনের ফার্স্ট সেক্রেটারি (প্রেস) নূরএলাহি মিনাসহ সর্বস্তরের কর্মকর্তারাও ছিলেন।

পঞ্চদশতম কন্সাল জেনারেল সাদিয়া বলেছেন, জনবান্ধব কূটনীতিকে জোরদার করতে চাই সকলের সহযোগিতায়।

সাদিয়া বিশেষভাবে উল্লেখ করেন, নিউইয়র্কে নিজস্ব ভবনে কন্স্যুলেট অফিস স্থাপনকে আমি অগ্রাধিকার দিচ্ছি। সে অনুযায়ী কাজ করবো।

সেবার পরিধি প্রসারিত করতে আন্তরিকতার অভাব হবে না। সীমিত জনবল নিয়ে যতটা সম্ভব সেবা দিয়ে যাবো-সংকল্প সাদিয়ার।