যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের বৈঠকের প্রস্তুতি পুরোদমে চলছে। সর্বশেষ খবর অনুযায়ী, উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ জেনারেল এবং উনের ‘ডান হাত’ হিসেবে পরিচিত কিম ইয়ং চোল যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন। এ ছাড়া গত সোমবার সিঙ্গাপুর সফর করেছে উভয় দেশের দুটি প্রতিনিধিদল।

কূটনৈতিক সূত্রের বরাত দিয়ে দক্ষিণ কোরিয়ার সংবাদ সংস্থা ‘ইয়োনহাপ’ জানায়, জেনারেল কিম ইয়ং চোল গতকাল মঙ্গলবার চীনের পেইচিং বিমানবন্দরে পৌঁছান। সেখান থেকে আজ বুধবার নিউ ইয়র্কের উদ্দেশে রওনা হবেন তিনি।

আগামী ১২ জুন সিঙ্গাপুরে ট্রাম্প ও উনের বহুল কাঙ্ক্ষিত বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। কখনো মনে হচ্ছে বৈঠকটি হবে, কখনো মনে হচ্ছে হবে না। সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে ‘প্রকাশ্যে শত্রুতার’ অভিযোগ তুলে বৈঠক বাতিলের ঘোষণা দেন ট্রাম্প। অবশ্য এক দিন না পেরোতেই ট্রাম্প নিজের সিদ্ধান্ত পাল্টে বলেন, ‘বৈঠকের প্রস্তুতি বেশ ভালোভাবেই এগোচ্ছে।’

কিম ইয়ং চোলের সফর সম্পর্কে ‘কোরিয়া ইনস্টিটিউট ফর ন্যাশনাল ইউনিফিকেশন’-এর বিশ্লেষক চুং সাং-ইয়ুং বলেন, ২০০০ সালে উত্তর কোরিয়ার ভাইস মার্শাল জো মায়োং যুক্তরাষ্ট্রের মাটিতে তৎকালীন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিলেন। এরপর গত ১৮ বছরের মধ্যে কিম ইয়ং চোলই হবেন উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ কোনো কর্মকর্তা, যিনি যুক্তরাষ্ট্রে পা ফেলতে যাচ্ছেন।

সাং-ইয়ুং জানান, কিম জং উনের ‘ডান হাত’ হিসেবে পরিচিত কিম ইয়ং চোল চলমান শান্তিপ্রক্রিয়ায় খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন। উনের সর্বশেষ দুই চীন সফরেও সঙ্গে ছিলেন তিনি। এ ছাড়া সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পিয়ংইয়ং সফরে গিয়ে চোলের সঙ্গে বৈঠক করেছেন।

চুং সাং-ইয়ুংয়ের ধারণা, চোল যুক্তরাষ্ট্রে পোম্পেওর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন। সম্ভব হলে দেখা করবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং তাঁর জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টনের সঙ্গেও।

এদিকে জাপানের গণমাধ্যম ‘এনএইচকে’ জানায়, গত সোমবার সিঙ্গাপুর সফর করেছেন কিম জং উনের চিফ অব স্টাফ হিসেবে পরিচিত কিম চাং-সন। একই দিন জাপানের ইয়োকোতা বিমানঘাঁটি থেকে সিঙ্গাপুরের উদ্দেশে রওনা হয় যুক্তরাষ্ট্রের একটি প্রতিনিধিদল। ওই দলে হোয়াইট হাউসের ডেপুটি চিফ অব স্টাফ জো হাগিনও ছিলেন।

ওয়াশিংটন পোস্টের খবরে বলা হয়, দুই কোরিয়ার বেসামরিক অঞ্চল পানমুনজমে আগামী রবিবার যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার কর্মকর্তাদের মধ্যে বৈঠক হবে। অন্যদিকে হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, উনের সঙ্গে সম্ভাব্য উনের সঙ্গে বৈঠকের আগে ট্রাম্প ও জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে সামনাসামনি বসবেন।

সূত্র : এএফপি