বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি আদায়ে ঈদের পর দুর্বার আন্দোলনের প্রস্তুতি নেয়ার আহবান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র জাসাস।

সোমবার সন্ধ্যায় নিউইয়র্ক সিটির ব্রুকলীনে আয়োজিত এক সমাবেশ থেকে এ আহ্বান জানানো হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির অন্যতম সদস্য, জাসাসের সেক্রেটারি ও চিত্রনায়ক হেলাল খান।

খালেদা জিয়ার কারাবন্দী হওয়ার ঘটনা উল্লেখ করে হেলাল খান বলেন, বাংলাদেশের মানুষ সুযোগ পেলেই এর সমুচিত জবাব দেবেন নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলনের মাধ্যমে। আর সেই আন্দোলন শুরু হবে ঈদের পর।

হেলাল খান প্রবাসীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তির পক্ষে আন্তর্জাতিক জনমত গঠনের আহবান জানান। যুক্তরাষ্ট্র জাসাসের সভাপতি আলহাজ্ব আবু তাহেরের সভাপতিত্বে এ সমাবেশ পরিচালনা করেন সেক্রেটারি কাওসার আহমেদ।

প্রধান বক্তা যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা কামাল পাশা বাবুল বলেন, তিন বারের প্রধানমন্ত্রী আজ কারাগারে। এর চেয়ে দুর্ভাগ্যের আর কী থাকতে পারে। আমরা জিয়ার সৈনিকেরা ঘরে বসে থাকতে পারি না ম্যাডামকে জেলে রেখে।

বিশেষ অতিথি যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল লতিফ সম্রাট বলেন, যুক্তরাষ্ট্র বিএনপির কমিটি নেই সাড়ে ৫ বছর হল। এজন্যে কেউই সাংগঠনিক প্রক্রিয়ায় জোর পাচ্ছি না। আর কর্মীরা-ই বা কার কথা শুনবে। এখন প্রয়োজন কেন্দ্র অনুমোদিত একটি কমিটি।

বিএনপি নেতা গিয়াস আহমেদ বলেন, গত কয়েকদিনে মার্কিন রাজনীতিকদের সাথে বাংলাদেশের পরিস্থিতি নিয়ে কথা হয়েছে। এ অবস্থায় যুক্তরাষ্ট্রের নেতা-কর্মীদের সোচ্চার হবার বিকল্প নেই।

বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও বক্তব্য দেন আলহাজ্ব সোলায়মান ভূইয়া, যুক্তরাষ্ট্র জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি আলহাজ্ব বাবরউদ্দিন, যুবদলের কেন্দ্রীয় আন্তর্জাতিক সম্পাদক এম এ বাতিন, বিএনপি নেতা আলহাজ্ব মাহফুজুল মাওলা নান্নু, সোহরাব হোসেন, জাহাঙ্গির সোহরাওয়ার্দি, আনোয়ার হোসেন, খলকুর রহমান, ছাত্রদল নেতা মাজহারুল ইসলাম জনি প্রমুখ।

উল্লেখ্য, বহুধা বিভক্ত নেতা-কর্মীর প্রায় সকলেই জাসাসের এ ইফতার মাহফিল পরবর্তী সমাবেশে উপস্থিত হয়ে প্রবাসে আন্দোলনের দিক-নির্দেশনার দাবি জানান।