টানা তৃতীয়বারের মতো বিশেষ সম্মাননা জানানো হল প্রবাসের মুক্তিযোদ্ধাদের। ম্যাসাচুসেটস অঙ্গরাজ্যের বাঙালিদের অন্যতম সংগঠন নিউ ইংল্যান্ড বাংলাদেশি আমেরিকান ফাউন্ডেশন, ইনক (নিবাফ) এ সম্মাননা জানায়। গত শনিবার বস্টনের মেডফোর্ড স্কুল অডিটরিয়ামে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মাননা প্রদানসহ দিনভর বিভিন্ন আয়োজনের মধ্য দিয়ে বস্টনবাসী বাংলা নববর্ষকে বরণ করেন।

সম্মাননা পেয়েছেন কণ্ঠযোদ্ধা রথিন্দ্রনাথ রায়, যোদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ইউসুফ চৌধুরী, মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল হক চৌধুরি, নাসির উদ্দিন চৌধুরি, লাবলু আনসার, রাশেদ আহমেদ, রেজাউল বারি, আবুল বাশার চুন্নু ,বীর মুক্তিযুদ্ধা রাশেদ আহমেদ, আবু তাহের মিয়ান বীর প্রতিক, মোস্তাফিজুর রহমান, সাঈদ শওকত রহমান, মোস্তাক তালুকদার, ড. সৈয়দ আবুল হাসনাত, মং ছাঁতই চৌধুরি, মো. শহিদুল ইসলাম, রাতুল কান্তি বডুয়া ও খলিলুর রহমান।

সন্ধ্যায় যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে বসবাসরত মুক্তিযোদ্ধাদের মিলনমেলা ঘটে অডিটরিয়ামে। সম্মাননার প্রদান পর্বের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিল যুক্তরাষ্ট্রের সেক্টর কমান্ডার্স ফোরামের বস্টন শাখা।

স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শব্দ সৈনিক মাজহারুল ইসলামের রেকর্ডকৃত শুভেচ্ছা এবং নিউ ইংল্যান্ডের জনপ্রিয় উপস্থাপিকা আয়েশা দেওয়ান লিপির সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ও আমেরিকার জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়।

মুক্তিযোদ্ধাদের উদ্দেশ্য শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন নিবাফের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারপার্সন এবং মেলা কমিটির চিফ অর্গানাইজার নাহিদ সিতারা নজরুল। সমন্বয়কের দায়িত্বে ছিলেন যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা বস্টন প্রবাসী ইউসুফ চৌধুরী। মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ থেকে আগত মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গবেষক, দৈনিক পূর্বদেশ পত্রিকার সাবেক বার্তা সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা নাসির উদ্দিন চৌধুরী।

বক্তব্য দেন নিউইয়র্কে ‘আমেরিকা-বাংলাদেশ প্রেস ক্লাব’র সভাপতি, উত্তর আমেরিকা থেকে প্রকাশিত ‘বাংলাদেশ প্রতিদিন’ এর নির্বাহী সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা লাবলু আনসার, যুক্তরাষ্ট্র সেক্টর কমান্ডার্স ফোরামের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা রাশেদ আহমেদ, ক্যামব্রিজ সিটির ভাইস মেয়র জ্যান ডেভেরোক্স, সিটির কাউন্সিলওম্যান স্যাম্বুল সিদ্দিকী, নিউইয়র্কে বাংলাদেশের ডেপুটি কন্সাল জেনারেল চৌধুরী পারভিন সুলতানা, ফার্স্ট সেক্রেটারি শামিম হোসাইন।

আয়োজনে সংগঠকদের মধ্যে আরও ছিলেন নিবাফের ডিরেক্টর (পাবলিক রিলেশন ও ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট) তাহেরা আহমেদ মিতু, অ্যাডিশনাল চিফ কো-অর্ডিনেটর তাহমিনা হাসান কণা, অর্গানাইজিং সেক্রেটারি ফাহমিদা মালিক, ম্যাগাজিন ও লিটারেচার ফেরদৌস জেসমিন, ফাইন্যান্স ম্যানেজমেন্ট ফারহানা খোরশেদ, কালচারাল এ্যাক্টিভিটিস রাজু বডুয়া, অর্গানাইজিং সেক্রেটারি কামরুননাহার কান্তা, হোটেল অ্যান্ড গেস্ট ম্যানেজমেন্ট মোস্তফা মোহাম্মদ, ওয়েব অ্যান্ড মিডিয়া তহফাতুল ইসলাম মিল্টন, টেকনোলজি ডিজাইন এমরান পাঠান ।

এ আয়োজনের মিডিয়া পার্টনার ছিল বাংলাদেশ প্রতিদিন, নিউজ টোয়েন্টিফোর এবং চ্যানেল আই টিভি।