বাংলাদেশ দূতাবাস লিসবনের আয়োজনে ‘বাংলা নববর্ষ উৎসব’ সফলভাবে আয়োজিত হয়। প্রায় ৪ শতাধিক বিদেশি ও পর্তুগালে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের স্বতস্ফূর্ত অংশগ্রহণে উৎসবটি উদযাপিত হয়।

সফল, সুন্দর ও সুশৃঙ্খল অনুষ্ঠানের প্রসংশা ও সুনাম যখন প্রবাসী বাংলাদেশ ও বিদেশি অতিথিদের মুখে মুখে ঠিক সেই সময়ে দূতাবাসের বিরুদ্ধে কিছু ব্যক্তি তাদের ব্যক্তিগত অসন্তুষ্টির জের ধরে বাংলাদেশ দূতাবাসের আয়োজিত ‘বাংলা নববর্ষ ও বাংলাদেশ উৎসব’ সম্পর্কে সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট, বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে সামাজিক মাধ্যম ফেইসবুকে মিথ্যা অপ্রীতিকর খবর ছড়াতে থাকে। সেই সাথে লন্ডনভিওিক বেসরকারি একটি টেলিভিশনেও কোন প্রকার যাচাই-বাচাই না করে প্রচার করে। যার ফলে পর্তুগালে বসবাসরত বাংলাদেশ কমিউনিটির মানুষের মাঝে নানা বিভ্রান্তির জন্ম দেয় এবং পর্তুগালের সচেতন নাগরিকরা সোচ্চার হয়ে উঠেন। দূতাবাসের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগকে ভিত্তিহীন বলে অনেকেই এর প্রতিবাদ জানান।

পর্তুগালস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের মিথ্যা প্রোপাগান্ড ছড়ানো এবং শান্তিকামী পর্তুগাল প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টির ষড়যন্ত্র ও অপপ্রচারের বিরুদ্ধে ৩ মে পর্তুগালের স্থানীয় সময় রাত ১০টায় লিসবনের রাধুঁনি রেস্টুরেন্টে ‘প্রবাসী নাগরিক শান্তি-ঐক্য পরিষদ’ লিসবনের ব্যানারে পর্তুগালের বাংলাদেশি কমিউনিটির সর্বস্তরের মানুষদের নিয়ে এক প্রতিবাদ সভা ও সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

প্রবাসী ব্যবসায়ী ও কমিউনিটি প্রবীণ ব্যক্তিত্ব হুমায়ুন কবির জাহাঙ্গীরের সভাপতিত্বে মো. শাহাদাত হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন কমিউনিটি নেতা আবুল কালাম আজাদ, এম.এ খালেক, কাজী এমদাদ মিয়া, নজরুল ইসলাম সুমন, ফয়েজ আহমেদ প্রমুখ।

সভাপতির বক্তব্যে হুমায়ুন কবির জাহাঙ্গীর বলেন, মিথ্যা বানোয়াট তথ্য সংবাদ উপস্থাপন করে সদ্য বাংলা নববর্ষ ১৪২৫ উদযাপন অনুষ্ঠানকে কালিমা লেপন এবং বাংলাদেশ দূতাবাস পর্তুগাল ও প্রবাসী বাংলাদেশিদের সম্মান নিয়ে ষড়যন্ত্রকারীদের বানোয়াট বক্তব্য প্রত্যাহার করে ক্ষমা প্রার্থনা এবং সঠিক ও সত্য তুলে ধরার দাবি জানান।

দক্ষ একজন কূটনীতিককে নিয়ে যে শিষ্টাচার বর্হিভূত মিথ্যা তথ্য দিয়ে পর্তুগালস্থ সব প্রবাসী বাংলাদেশির মাথা নিচু করেছেন এজন্য তাকে অবশ্যই তার মিথ্যা বক্তব্য প্রত্যাহার করে দূতাবাস এবং বাংলাদেশ কমিউনিটির কাছে ক্ষমা চাইতে হবে।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন, কমিউনিটি নেতা কামরুল হাসান টুকু, আব্দুর রাজ্জাক, মুজিবর মোল্লা, মো. লিটন, ইকবাল আলী ভুঁইয়া, মো আবু হেনা, শহীদুল্লাহ, ইকবাল চৌধুরী, তবারক হোসেন তপু, মো আখতারুজ্জামান, মামুন, মাহবুব আলম, ইসমাইল হোসেন সবুজ, মো ফুয়াদ, মাইন উদ্দিন, মাস্টার, রাসেল, জোবায়ের, ইমরান, মাহফুজুর রহমান, রাসেল, প্রমুখ।

সর্বশেষ প্রবাসী নাগরিক শান্তি-ঐক্য পরিষদের আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় বাংলাদেশ দূতাবাস লিসবনের রাষ্ট্রদূত উপস্থিত প্রবাসী ও সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে একটি লিখিত বার্তা পাঠান। রাষ্ট্রদূতের লিখিত সেই বার্তাটি পড়ে শোনান সভার সভাপতি হুমায়ুন কবির জাহাঙ্গীর।