গাজা উপত্যকায় ভূমি ফিরে পাওয়ার অধিকারে বিক্ষোভে নামেন প্রায় ৩০ হাজার ফিলিস্তিনি। এই মিছিলের নাম দেওয়া হয়েছে ‘গ্রেট মার্চ টু রিটার্ন।’ কিন্তু ওই মিছিলের উপর অতর্কিতে গুলি এবং কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করেছে ইসরায়েলি বাহিনী। এতে মৃত্যুর মিছিলে যোগ হয়েছে ১৭ ফিলিস্তিনি। এছাড়া আহত হয়েছেন বহু মানুষ। প্রতিদিনই এই মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েই চলেছে।

হামাস সেনাবাহিনী জানিয়েছে, ভূমি রক্ষা অধিকারে শান্তিপূর্ণভাবেই বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন সাধারণ মানুষ। সীমান্তের ৩০০ মিটারের মধ্যে এলেই বিপদ, আগেই হুঁশিয়ারি দিয়ে জানিয়েছিল ইসরায়েলি সেনা।

সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, ইসরায়েলি সেনার হুমকি তোয়াক্কা না করেই ঢোকার চেষ্টা করে গাজার কিছু বিক্ষোভকারী। ইয়াহ আবু আসার নামে ২২ বছরের এক ফিলিস্তিনি যুবক বলেন, গুলি করুক আমাকে। এই জীবন চাই না আমি।’

১৯৪৮ সালে ১৫ মে ইসরায়েলি গঠন হওয়ার পর কয়েক লাখ ফিলিস্তিনিকে সে দেশ ছেড়ে চলে আসতে হয়। ভিটে মাটি ছেড়ে আসার দুঃখ এখনও তাড়িয়ে বেড়ায় ছিন্নমূল ফিলিস্তিনিদের। ১৫ মে ইসরায়েল সরকার গঠনে বর্ষপূর্তি হলেও, এ দিন বিপর্যয়ের দিন বলে মনে করেন ফিলিস্তিনিরা। এই দিনটিকে সামনে রেখেই বিক্ষোভে নেমেছেন তারা।

উল্লেখ্য, ১৯৭৬ সালের এ দিনে ইসরায়েল ফিলিস্তিনিদের ২১ হাজার বর্গকিলোমিটার ভূমি নতুন করে দখলের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করে। এরপরই ফিলিস্তিনিরা ওই দিনটিকে ভূমি দিবস হিসেবে ঘোষণা করে।