আগামী ৩১ মার্চ ও ১ এপ্রিল শুরু হতে যাচ্ছে দুই দিন ব্যাপী ১২তম বাংলাদেশ ডে প্যারেড ও ফেস্টিবল, ২০১৮। ৩১ মার্চ (শনিবার) দুপুর ২টা থেকে প্যারেড শুরু হবে লিটল বাংলাদেশ এলাকা থেকে। প্রতিবারের মত এবারও থার্ড স্ট্রীষ্টের উপর দিয়ে প্যারেড যাবে ফেস্টিবল এলাকায় (ভার্জিল মিডল স্কুলে, ভারমন্ট এণ্ড বেভারলী বুলেবার্ড)। প্যারেড চলাকালীন নরম্যান্ডী থেকে ভরমন্ট এবং ভরমন্ট থেকে বেভারলি পর্যন্ত প্রধান সড়ক বন্ধ থাকবে।

প্যারেডে শোভা বৃদ্ধি, দেশীও সংস্কৃতি ও কালচারকে তুলে ধরার জন্য প্যারেডে থাকবে বাংলাদেশের বৃহত্তম পতাকা, সেই সঙ্গে আমেরিকার পতাকা। এছাড়া থাকবে চলমান শহীদ মিনার, জাতীয় স্মৃতিসৌধের প্রতিকৃতি, রয়েল বেঙ্গল টাইগার, সজ্জিত মটর গাড়ী, ফ্লাইওভার হেলিকপ্টর, মারচিং ব্যাণ্ড, ঘোড়া, মটর সাইকেল, র‌্যালী, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর ছবি সহ রঙবে রঙের পোশাকে সজ্জ্বিত বিভিন্ন সংগঠনের র‌্যালী।

ফেস্টিবলে থাকছে দেশীয় খাদ্য ও পণ্যের সমাহার। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে বাংলাদেশ থেকে আসবেন আইয়ূব বাচ্চু (এলআরবি) ব্যান্ড, জিনাত জাহান মুন্নি। নতুন প্রজন্মের আর্ট এবং কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগিতা থাকবে বিশেষ আয়োজন হিসেবে।

এছাড়া ইউথ টেলেন্ট এওয়ার্ড প্রদান সহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানাদি থাকবে বলে জানিয়েছেন বাফলার প্রেসিডেন্ট নজরুল আলম।

তবে বাফলার অন্যতম বিষয় হচ্ছে সেমিনার। ৩১ মার্চ ভার্জিল মিডল স্কুলে প্যারেডের পর বিকেল সাড়ে ৫টায় শুরু হবে এই সেমিনার। সেমিনারে এবারের বিষয় ‘What Example we want to present now for our younger generation’।

বাফলার প্যারেডে কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ ও কমিউনিটির ব্যাক্তিবর্গ যারা সংগঠনের সাথে জড়িত নয় এমন ব্যাক্তিদের জন্য এলএ কমিউনিটি ব্যানার সহ র‌্যালী থাকবে। লস এঞ্জেলেস সকল কমিউনিটির মানুষদেরকে আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধে যে সকল বীরমুক্তিযোদ্ধারা শহীদ হয়েছেন তাদের প্রতি সম্মান প্রদর্শনে প্যারেডে অংশগ্রহণ করতে। মূলধারায় বাংলাদেশকে তুলে ধরার এই প্রচেষ্টাকে সাফল্য মন্ডিত করতে সবাইকে উপস্থিত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছে বাফলার কর্তৃপক্ষ।

কারণ বাফলা মনে করে সংগঠনের আজকের এই সাফল্য কমিউনিটির সহযোগিতাতেই সম্ভব হয়েছে।