মালদ্বীপে চলমান সংকট সমাধানে দেশটির নির্বাসিত সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদ প্রতিবেশী প্রভাবশালী রাষ্ট্র ভারতকে ‘সরাসরি হস্তক্ষেপ’ করার অনুরোধ জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার মোহাম্মদ নাশিদ এক টুইট বার্তায় এই আহবান জানান।

মালদ্বীপের সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাশিদের মালদ্বীপ ডেমোক্রেটিক পার্টি সার্কভুক্ত দেশ শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বো থেকে পরিচালিত হয়। মঙ্গলবার সেখান থেকেই নয়াদিল্লি কাছে দ্রুত সাহায্য কামনা করে জরুরি টুইট বার্তাটি পাঠান তিনি।

টুইট বার্তায় তিনি বলেন,  ‘মালদ্বীপের জনগণের পক্ষ থেকে আমরা আটক প্রধান বিচারপতি ও সাবেক প্রেসিডেন্ট মামুন আবদুল গাইয়ুমকে মুক্ত করতে ভারতের কাছে সামরিকবাহিনীসহ প্রতিনিধি পাঠানোর বিনীত অনুরোধ করছি। আমরা ভারতের সরাসরি হস্তক্ষেপ চাইছি।’

প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ ইয়ামিন আবদুল গাইয়ুম সোমবার জরুরি অবস্থা ঘোষণা করার পর পুলিশ ও সৈন্যরা মধ্যরাতে প্রেসিডেন্টের জ্যেষ্ঠ সৎ ভাই সাবেক প্রেসিডেন্ট মামুন আবদুল গাইয়ুমকে গ্রেফতার করে।

এছাড়া সুপ্রিম কোর্টের দুই বিচারপতিকেও মঙ্গলবার ভোরে সুপ্রিম কোর্টের ভেতরে হানা দিয়ে তুলে নিয়ে যায় পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। গ্রেফতার হওয়ার ভয়ে সুপ্রিম কোর্টের বিচারকরা তাদের বাসভবন ছেড়ে সুপ্রিম কোর্টভবনে আশ্রয় নিয়েছিলেন।

সকল বিরোধী রাজনৈতিক নেতাকর্মীর নামে করা মামলা ও আটকাদেশকে অবৈধ ঘোষণা করে তাদের মুক্তি ও অব্যাহতি দান এবং প্রেসিডেন্টকে গ্রেফতার করার জন্য বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের চারজন বিচারপতির যে বেঞ্চ আদেশ দিয়েছিল, গ্রেফতারকৃত দুই বিচারপতিও সেই বেঞ্চে ছিলেন।

এরা হচ্ছেন বিচারপতি আবদুল্লাহ সাঈদ ও আলী হামিদ। এছাড়া বিচার বিভাগীয় এক কর্মকর্তাকেও এসময় গ্রেফতার করা হয়। কোনো সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছাড়াই তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়।